কাপাসিয়ায় গত ৭ মাস যাবত বাড়িতে ঢুকার রাস্তায় বাঁশের বেড়া সারা নেই জনপ্রতিনিধিদের

0
90

তাওহীদ হোসেন কাপাসিয়া গাজীপুর:কাপাসিয়ায় গত ৭ মাস যাবদ বাড়িতে ঢুুকার রাস্তায় বেড়া, সমাধানেরধ উদ্বোগ নেই জনপ্রতিনিধিদের।

আর এমন ঘটনা গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার বারিষাব ইউনিয়নে।

ইউনিয়নের নরোত্তমপুরে শেফালি আক্তারের বাড়ি যাওয়ার সড়কে বেড়া দিয়ে রেখেছে প্রতিবেশি মোঃ রফিকুল ইসলাম ও মোঃ সবুজ মিয়া। এলাকার কেউই অসহায় পরিবারের পাশে এসে দাঁড়াচ্ছে না।জানা যায়,গত প্রায় ৭ মাস পূর্বে বাড়িতে আসা যাওয়ার এ সড়কটিতে জোর করে বেড়া দেয় রফিকুল ইসলাম ও সবুজ মিয়া।শুধু সেফালি আক্তারের বাড়ির লোকজন যেতে পারছে না বেড়া দেওয়ার কারণে।শেফালি আক্তার জানান,মেম্বার চেয়ারম্যানকে জানালেও তারা এই দীর্ঘ সময়ের মধ্যেও আমাদের বাড়িতে আসার সড়কের বেড়া খোলাচ্ছে না।উপরন্ত কিছু দিন পূর্বে বেড়া বেঙ্গে গেলে আমার মায়ের সাথে কথা কাটাকাটি হয়।এরই জের ধরে গত ১২ নভেম্বর সকালে রফিকুল ইসলাম,সবুজ মিয়াসহ ৭- ৮জন আমাকে রক্তাক্ত জখম করে।আমাকে মেরে ফেলার হুমকিও দিয়েছে।

কাপাসিয়া থানায় অভিযোগের ভিত্তিতে জানাযায়,শেফালিকে মেরে টেনে-হেঁচরে নেওয়ার সময় ঘরে থাকা ২০ হাজার টাকা ও গলার ৮আনার(৩২হাজার টাকা) একটি স্বের্ণের চেইন নিয়ে যায়।

খোজ নিয়ে জানা যায়,শেফালি আক্তারকে রক্তাক্ত জখম করার পর থানায় ৭ জনের নামে অভিযোগ দায়ের করেন।থানা পুলিশ কয়েক জনকে আটক করলেও মেম্বার ফয়সালা করবেন জানিয়ে মেম্বারের জিম্মায় আসামিদের রেখে দেন।৪-৫ দিন অতিবাহিত হয়ে গেলেও এখনো মেম্বারের কোন তৎপরতা দেখা যাচ্ছে না।উল্টো তাদের বাড়ি ছাড়ার হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে জানান শেফালি আক্তার।অসহায় পরিবারটি বাড়িতে আসা-যাওয়ার সড়কটি খুলে দেওয়া, রক্তাক্ত জখম ও লুটপাটের আইননানুগ বিচার চান।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন