কাপাসিয়ায় প্রতিবেশীর হামলায় ২শিশু রক্তাক্ত জখম থানায় অভিযোগ

0
53

নিজস্ব প্রতিবেদক কাপাসিয়া (গাজীপুর) গরু-ছাগল দিয়ে ফসলের ক্ষতি করার প্রতিবাদ করায় প্রতিপক্ষ কর্তৃক বাবাকে রক্তাক্ত জখম করায় বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে গুরুতর আহত হয়েছে দুই শিশুপুত্র।

ঈদুল ফিতরের পরদিন ১৫মে বেলা ২টার দিকে গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার আমরাইদ ইয়াকুব আলী সিকদার উচ্চ বিদ্যালয়ের সাথে খালি জায়গায় ওই ঘটনা ঘটে।

সরেজমিন জানা যায়, আমরাইদ গ্রামের মোঃ আবু সুফিয়ান সিকদারের দুই ছেলে ঈদে গ্রামের বাড়িতে যায়। দুই ছেলের মধ্যে তাসিন সিকদার জয়দেবপুর রাণী বিলাসমনি সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেনীর ছাত্র। আরেক ছেলে গাজীপুর শহরের অন্য একটি স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্র।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গরুছাগল ফসলের ক্ষতি করার সময় সুফিয়ান সিকদার তাড়াতে যায়। এসময় গরু ছাগলের মালিক প্রতিবেশী মতিন, ফরহাদ ও মোবারক একযোগে দেশীয় অস্ত্রপাতি নিয়ে সুফিয়ানকে লাঠি ও রড দিয়ে রক্তাক্ত জখম করে হত্যার চেষ্টা করেন। বাবাকে বাঁচাতে দুই ভাই তাসীন ও তওসীফ ছুটে গেলে তাদের উপরও আক্রমন হয়। এক পর্যায়ে অস্ত্রধারীরা দুই শিশুকে মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করে। তারা দুই শিশুকে বুকের উপর বসে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা চালায়। আহতদের আর্তচিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে গেলে আক্রমণকারীরা পালিয়ে যায়। অতঃ পর আহতদের নিকটবর্তী কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানাযায় হামলাকারীরা নিজেদের রাজনৈতিক নেতা পরিচয়ে নানারকম অপরাধ অপকর্মের সাথে জড়িত হয়ে আশপাশের লোকজনের সাথে বিভিন্ন সময়ে ঝগড়াঝাটি,ছাগল গরু দিয়ে ফসলের ক্ষয়ক্ষতি করা সহ হুমকি-ধমকি দিয়ে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ অশান্তি সৃষ্টি করে আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটায় প্রায়শই।

ঈদের ছুটিতে বাড়ি গিয়ে দুই স্কুল ছাত্র নির্যাতনের বিষয়ে স্থানীয় রায়েদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল হাকিম মোল্লা হিরণ বলেছেন, আমি বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত। আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন হচ্ছে।

এ বিষয়ে আহতদের পক্ষে কাপাসিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক( এসআই) মোঃ মমিন বলেছেন, অভিযোগ তদন্ত চলছে।

কাপাসিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) আলম চাঁদ বলেছেন, এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়ারধীন।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন