গাজীপুরে হত্যার তিন মাস পর দু’জন গ্রেফতার, খুনের লোমহর্ষক বর্ণনা

0
41

গাজীপুরঃ গাজীপুরে এমাজিং ফ্যাশন লিঃ এর ড্রাইভার হিসেবে কর্মরত জাহিদুল ইসলাম‘কে খুনের লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন খুনি। বুধবার সন্ধ্যায় বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে রাব্বি হোসেন(২১) ও শিপন হোসেন (২৩) দুই খুনিকে গ্রেফতার করে টঙ্গী পশ্চিম থানার পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার মোহাম্মদ জাকির হাসান, প্রেসব্রিফিং এ বিষয়টি জানান।

প্রেসব্রিফিং এ জাকির হাসান জানান, নেত্রকোনা জেলার মৃতঃ হযরত আলী’র ছেলে জাহিদুল ইসলাম (৩৫) গাছা থানাধীন মালেকের বাড়িস্থ এমাজিং ফ্যাশন লিঃ এর ড্রাইভার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

গত ০১ মার্চ রাত ১১.৩০ ঘটিকার সময় তার অফিসের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের ঢাকায় নামিয়ে দিয়ে আসার পথে ঢাকা হইতে টঙ্গী পশ্চিম থানাধীন ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের মাছিমপুর পিপলস সিরামিকের সামনে পৌঁছাইয়া গাড়ী হইতে নেমে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে যায়। এসময় অজ্ঞাতনামা ৩/৪ জন দুষ্কৃতিকারী অতর্কিতভাবে পিছনে দিক থেকে আসিয়া জাহিদুল ইসলাম‘কে ঘিরিয়া ধরে এবং তাহার নিকট থাকা মালামাল ও জিনিসপত্র কাড়িয়া নেওয়ার চেষ্টা করে। এসময় দুষ্কৃতিকারীরা ধারালো অস্ত্র দ্বারা ভিকটিম জাহিদুল ইসলামের ডান পায়ের উরুতে ও মাথায় আঘাত করিয়া গুরুত্বর রক্তাক্ত জখম করে। ঘটনাস্থলের পাশেই টঙ্গী পশ্চিম থানার টহলরত পার্টি এবং পথচারী লোকজন আগাইয়া আসিলে দুষ্কৃতিকারীরা পালিয়ে যায়।

ফোর্সসহ পথচারী লোকজনের সহায়তায় ভিকটিম‘কে চিকিৎসার জন্য শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতাল টঙ্গী, গাজীপুর নিয়ে যায়। পরীক্ষা শেষে কর্তব্যরত ডাক্তার জাহিদুল ইসলামকে মৃত বলিয়া ঘোষনা করেন। ঘটনায় ভিকটিমের বড় ভাই মোঃ সাইফুল ইসলাম, বাদী হয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

এরপরে ঘটনাস্থলের আশপাশের সিসিটিভি ফুটেজ ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় গত ইং ০২/০৬/২০২১ তারিখ রাত ২০.৫০ ঘটিকার সময় টঙ্গী পশ্চিম থানার পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে দুজনকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃতরা হলো, ১। শিপন(২৩), পিতা-ছবির সাং-ময়নারটেক থানা-দক্ষিণখান, ঢাকা মহানগর, ঢাকা দত্তপাড়া থানা-টঙ্গী পূর্ব, গাজীপুর মহানগর, গাজীপুর দিঘীরপাড় এলাকা হইতে এবং আসামী ২। মোঃ রাব্বি(২১), পিতা-মোঃ রুবেল সাং-এরশাদনগর, থানা-টঙ্গী পূর্ব, গাজীপুর মহানগর, গাজীপুর‘কে এরশাদনগর এলাকা হইতে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃত আসামীরা জানায়, ঘটনার দিন ইং ০১/০৩/২০২১ তারিখ রাত ২৩.৩০ ঘটিকার সময় রাব্বি, শিপন ও রাব্বি-২ ভিকটিমের অস্থাবর মালামাল কাড়িয়া নেওয়ার জন্য ধারালো অস্ত্র সুইচ গিয়ার চাকু দ্বারা ভিকটিমের ডান পায়ের উরুতে ও মাথায় আঘাত করিয়া গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে।

আসামী শিপনকে জিজ্ঞাসাবাদে জানায় যে, ঘটনার সময় ব্যবহৃত ধারালো চাকু ঘটনাস্থল সংলগ্ন কাদেরিয়া টেক্সটাইল এর দেওয়াল সংলগ্ন পরিত্যক্ত জায়গায় তারা ঢিল মেরে ফেলে আসে। পরবর্তীতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সঙ্গীয় ফোর্সসহ গ্রেফতারকৃত আসামী শিপন’কে সাথে নিয়ে তথায় উপস্থিত হয়ে মামলার হত্যায় ব্যবহৃত স্টীলের তৈরি ফোল্ডিং করা ধারালো সুইচ গিয়ার (চাকু) যাহার বাটসহ লম্বা ১১ ইঞ্চি এবং ফোল্ডিং করা অবস্থায় ৪.৫ ইঞ্চি উদ্ধার পূর্বক জব্দ করেন। আসামীদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মামলার সুষ্ঠু তদন্ত ও ন্যায় বিচারের স্বার্থে অপরাপর জড়িত আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন