ঝিকরগাছার কপোতাক্ষ নদের ওপর নির্মাণাধীন সেতুর কাজ বন্ধ,ভোগান্তিতে পথচারী ও যাত্রীরা

0
4

মোঃ নজরুল ইসলাম বিশেষ প্রতিনিধি
যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের ঝিকরগাছার কপোতাক্ষ নদের ওপর নির্মাণাধীন সেতুটির কাজ বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছেন পথচারী ও যাত্রীরা। বিশেষ করে বেনাপোল বন্দরে যাতায়াতকারী ট্রাকচালকদের দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে প্রতিনিয়ত।

নির্মাণাধীন সেতুটির যে অংশ খুলে দেওয়া হয়েছে তার দুই পাশে অর্ধেক অংশ ঢালাই দিয়ে ফেলে রাখায় একটি একটি করে গাড়ি পার হচ্ছে। ফলে রাত-দিন যানজট লেগেই থাকছে সেতুটির দুই পাড়ে। একই সঙ্গে শুষ্ক মৌসুম হওয়ায় ধুলায় নাজেহাল হতে হচ্ছে এই পথে যাতায়াতকারীদের।

নিয়ম করে সেতুটি নিচুভাবে নির্মাণ করায় এটি ভেঙে ফেলার দাবি জানিয়ে আসছিলেন স্থানীয়রাসহ নদী রক্ষা কমিটি। কারণ, এর ফলে নৌপথ বন্ধ হয়ে গেছে। এর পর সেতুটি চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হলেও দুই মাথায় সড়কের সঙ্গে সংযোগের কাজ শেষ না করেই ফেলে রাখা হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার সরেজমিনে দেখা গেছে, সেতুর দুই পাশে দুই কিলোমিটারজুড়ে যানবাহন ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে আছে। সেতুর দুই মাথায় বাধা থাকায় একটি একটি করে গাড়ি পার হচ্ছে। ফলে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন যশোর-বেনাপোল মহাসড়ক দিয়ে যাতায়াতকারী জেলার পশ্চিমাঞ্চল ও সাতক্ষীরার মানুষ।

দীর্ঘক্ষণ যানজটে আটকে পড়া বাসযাত্রী উপজেলা আনসার ভিডিপির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ারা খাতুন বলেন, সকাল ৯টার সময় ঝিকরগাছার কাছে হাজিরালিতে এসে পৌঁছালেও যানজটের কারণে প্রায় দুই ঘণ্টা অপেক্ষায় থাকতে হয়েছে।

প্রাইভেট কার চালক নুরনবী বলেন, ‘সেতুটির কাজ শেষ না হওয়ায় যানজটে ব্যাপক ভোগান্তি পেতে হচ্ছে। তবে বেশি সমস্যা হচ্ছে রোগী পরিবহন ও বিমানে যাতায়াতকারী যাত্রীদের।

দেশের প্রধান স্থলবন্দর বেনাপোলের পণ্যবাহী ট্রাক যানজট আরও দীর্ঘ করে দিচ্ছে। দুপুর গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বন্দর থেকে ছেড়ে আসা এসব ট্রাককে সেতুটি পার হতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে।

নাভারণ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুর আলম বলেন, ‘সেতুর দুই মাথায় অর্ধেক করে কাজ ফেলে রাখা হয়েছে। এতে একটি একটি করে গাড়ি পার করতে হচ্ছে। তাই যানজট বাড়ছে। গতকাল (বুধবার দিবাগত) রাত ২টা পর্যন্ত ওখানে দায়িত্বে ছিলাম।’
এ ঘটনায় তিনি সেতু নির্মাণে সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী ও ঠিকাদারকে দোষারোপ করেন।

যশোর সড়ক জনপথ অধিদপ্তরের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান বলেন, ‘সেতুর নতুন করে কাজের বিষয়ে আমার জানা নেই। খোঁজ-খবর নিয়ে সমস্যা পেলে সমাধান করা হবে।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন