ঝিনাইগাতীতে ২শত বছরের প্রাচীনতম শ্রী শ্রী কালিমাতা কামাক্ষা মন্দিরটি সংস্কারের অভাবে ঝরাজীর্ণ

0
4

মোঃ জিয়াউল হক। শেরপুর প্রতিনিধি : শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার কাংশা ইউনিয়ের পানবর গ্রামের ২শত বছরের প্রাচীনতম শ্রী শ্রী কালিমাতা কামাক্ষা মন্দিরটি সংস্কারের অভাবে ঝরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে আছে। এটি সংস্কারের নেই কোন উদ্যোগ। একটি ছাপড়া দেয়া মন্দির থাকলেও ঝড়-তুফানের কারণে তা ভেঙ্গে পড়ে আছে।

অনুসন্ধানে গিয়ে জানা গেছে, ২শত বছরের প্রাচীনতম শ্রী শ্রী কালিমাতা কামাক্ষা মন্দিরটি ১০০৮ বাংলা সনে ৪০ শতক জমির উপর প্রতিষ্ঠা করা হয়। উক্ত মন্দিরে আজ পর্যন্ত সরকারী/ বেসরকারী ভাবে নির্মিত করা হয়নি কোন স্থাপনা। নেই সীমানা প্রাচীর। যে কারণে স্থানীয় ভুমি খেকোরা প্রায়শই ওই জমিটা বেদখলের চেষ্টা চালায়। মন্দিরের একটি কমিটি থাকলেও জনবল আর অর্থের অভাবে ভাঙ্গা মন্দিরটি মেরামত করতে পারছে না। এর পরেও প্রতি বছরের আষাঢ় মাসে এখানে বসে মেলা। মেলার পরিবেশ না থাকলেও দেশের দুর-দুরান্ত থেকে আসেন ভক্তবৃন্দ।

এ ব্যাপারে কাংশা ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য শাহজাহান জানান, ঐতিহ্যবাহী এ মন্দিরটি সংস্কারের প্রয়োজন।

মন্দির কমিটির সভাপতি সুকুমার চন্দ্র কোচ ও সাধারণ সম্পাদক পবিত্র বর্মণ জানান, অর্থের অভাবে মন্দিরটি সংস্কার করতে পারছিনা। বাউন্ডারি না থাকায় প্রভাবশালীরা মন্দিরের চারিপাশের জমি বেদখলের চেষ্টা করে। সংস্কার সহ বাউন্ডারি করা না হলে বিলীন হয়ে যেতে পারে ঐতিহ্যবাহী এ মন্দিরটি।

ঐতিহ্যবাহী এই মন্দিরটিকে টিকিয়ে রাখতে প্রশাসন সহ জনপ্রতিনিদের সহযোগীতা কামনা করছেন, এলাকার সর্বস্তরের সনাতন ধর্মাম্বলী ও মন্দির কমিটির নেতৃবৃন্দ।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন