ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশ্ব দর্শন দিবস পালন

0
12

মোঃ নাসির, বিশেষ প্রতিনিধি-বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমেণর কারণে সীমিত আয়োজনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশ্ব দর্শন দিবস উদযাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে বিভাগের করিডোরে স্বল্প পরিসরে এক দর্শ দিবসের এক র্যালি অনুষ্ঠিত হয়। বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. হারুনার রশীদের নেতৃত্বে বিভাগের অন্যান্য শিক্ষকেরা এতে অংশ নেন।

অন্যান্য বছরগুলোতে বিস্তৃত কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে দিবসটিকে স্মরণীয় করার প্রচেষ্টা থাকলেও করোনার মহামারিতে সে সাধ সাধ্যতে রূপ নিতে পারেনি। তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ উপলক্ষে একটি ভার্চুয়াল সভার (ওয়েবিনার) আয়োজন করা হয়। এ যৌথ আয়োজনে ছিলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) দর্শন বিভাগ, গোবিন্দ দেব দর্শন গবেষণা কেন্দ্র, নৈতিক উন্নয়ন কেন্দ্র ও দর্শন বিভাগ অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন। অনুষ্ঠানে বরাবরের মতোই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজকেও সম্পৃক্ত করা হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে ওয়েবিনারের পাশাপাশি স্মরণিকাও প্রকাশ করা হয়। বিকাল সাড়ে ৪টায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম জুম-এ বিশ্ব দর্শন দিবস বক্তৃতা-২০২০ ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

দর্শন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আহাম্মদ উল্লাহ্’র সঞ্চালনায় এবং বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. হারুন রশীদের সভাপতিত্বে এতে “সংক্রামক ব্যাধি ও ব্যক্তি রোগীর অবস্থান: জীবনীতিবিদ্যা বনাম জনস্বাস্থ্য নীতিবিদ্যা” শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাবির দর্শন বিভাগের অধ্যাপক ড. নাইমা হক। বিশেষ অতিথি ছিলেন কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন।

স্বাগত ভাষণ প্রদান করেন নৈতিক উন্নয়ন কেন্দ্রের পরিচালক অধ্যাপক ড. কাওসার মুস্তাফা আবুলউলায়ী। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন অধিভুক্ত সাত কলেজের পক্ষে ইডেন কলেজের দর্শন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ফাহমিদা রাব্বি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দর্শন বিভাগ এলামনাই এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজা রহমান চৌধুরী বাবলী। বিভাগের সাবেক শিক্ষক অধ্যাপক ড. মো. আমিনুল ইসলাম অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করেন।

এতে আমন্ত্রিত অতিথি, শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ প্রায় দেড় শতাধিক লোকের অংশগ্রহণ ছিলো।

এদিকে, বিশ্ব দর্শন দিবস উপলক্ষে আন্তবিশ্ববিদ্যালয় বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের বিতার্কিকদের সংগঠন ‘দর্শন বিতর্ক ধারা’। এতে সূর্য সেন বিতর্ক ধারা চ্যাম্পিয়ন এবং বিওডিএস রানার্স আপ হয়।

ওয়েবিনারে বিষয়ের যথার্থতা ও তাৎপর্যতার কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান করোনাকালীন সময়ের এই আয়োজনকে সাধুবাদ জানান। সেই সাথে এ উপলক্ষে প্রকাশিত স্মরণিকার সংখ্যাটিকে তাৎপর্যমণ্ডিত করতে আয়োজকদেরকেও পরামর্শ দেন।

প্রসঙ্গত, ২০০২ সালে ইউনেস্কো দর্শন দিবসের ঘোষণা দেয়। পরবর্তীতে ২০০৫ সালে বিশ্ব দর্শন দিবস পালনের আহ্বান জানায়। এর পর থেকে বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় নানা আয়োজনে দিবসটি পালন করে আসছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগ ২০০২ সাল থেকেই নানা উদ্যোগ-আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করে আসছে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ন্যায় বাংলাদেশেও পালন করা হয় দিবসটি। তারই অংশ হিসেবে বাদ যায়নি এবারের আয়োজনও।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন