বঙ্গবন্ধু জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে কাপাসিয়ায় কাবাডি প্রতিযোগীতা

0
12

কাপাসিয়া প্রতিনিধিঃ অনেকটা হারাতে বসেছে গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী খেলা কাবাডি। খেলাটি বাংলাদেশের জাতীয় খেলা হলেও সময়ের বিবর্তনে এ খেলার চর্চা বর্তমানে নেই বললেই চলে। এমন প্রেক্ষাপটে নতুন প্রজন্মের কাছে এ খেলার প্রচলন ও মাদক মুক্ত সমাজ গড়ার প্রত্যয়ে গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলায় সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে মুজিব বর্ষ কাবাডি টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার সদর ইউনিয়নের পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে টুর্নামেন্টের সেমি ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়।

সেমি ফাইনাল খেলায় অংশ নেয় কাপাসিয়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় নলগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় ও ঈদগা উচ্চ বিদ্যালয় ঐতিহ্যবাহী এ খেলা দেখতে ভিড় জমায় বিভিন্নয় শ্রেণী পেশার মানুষ। খেলায় বেশি পয়েন্ট পেয়ে বিজয়ী হয় কাপাশিয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ও ঈদগা উচ্চ বিদ্যালয় দুটো দলই আগামী 26 মার্চ কাবাডি ফাইনাল খেলায় অংশগ্রহণ করবেন।

কাপাসিয়া উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোসাম্মৎ ইসমত আরা সভাপতিত্বে, উদ্বোধক কাপাসিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ আলম চাদ ও কামরুজ্জামান বিপ্লব এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও কাপাসিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এডভোকেট আমানত হোসেন খান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ।উপস্হিত ছিলেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোসাম্মৎ রৌশন আরা, মোহাম্মদ নাজমুল ইসলাম মোল্লা প্রধান শিক্ষক ঈদগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়, মোঃ মনিরুজ্জামান খাঁন ওসি তদন্ত কাপাসিয়া থানা, মোঃ আমিরুল ইসলাম ওসি অপারেশন কাপাসিয়া থানা, সাংবাদিক নুরুল আমিন, সাংবাদিক শাকিল, সাংবাদিক এসএম মাসুদ, এসআই পলাশ , এসআই বশিরউদ্দিন, এএসআই আল মামুন, এসআই নাহিদ হাসান, এসআই আমিনুল ইসলাম, এসআই সাজ্জাদুর, কনস্টেবল জব্বার, কনস্টেবল রুবেল, কনস্টেবল আব্দুর রউফ, কনস্টেবল নজরুল, কনস্টেবল মঞ্জু,, সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম এসআই আব্দুল আলীম, প্রমুখ।

জাতীয় এই খেলাকে নতুন প্রজন্মের কাছে ছড়িয়ে দিতে বারবার এমন আয়োজনের দাবি জানান খেলোয়াড় ও অতিথিরা। খেলা শেষে বিজয়ী ও রানার্সআপ দলের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

এসময় প্রধান অতিথি বক্তব্য এডভোকেট আমানত হোসেন খাঁন বলেন
কাবাডি উপমহাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় খেলা।[১] বর্তমানে কাবাডি আন্তর্জাতিক ভাবেও বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। এই খেলা সাধারণত কিশোর থেকে শুরু করে প্রাপ্তবয়স্ক সব ধরনের ছেলেরা খেলে থাকে। সাধারণত বিশেষ উৎসব বা পালা-পার্বণে বেশ আড়ম্বরপূর্ণ ভাবে কাবাডি খেলার আয়োজন করা হয়। কাবাডি বাংলাদেশের জাতীয় খেলা।[২] বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর বাংলাদেশে কাবাডি ফেডারেশন গঠিত হয়েছে। পূর্বে কেবল মাত্র গ্রামে এই কাবাডি খেলার প্রচলন দেখা গেলেও বর্তমানে সব জায়গায় কাবাডি খেলা প্রচলিত হয়েছে। খেলাধুলা ও সংস্কৃতি স্বাস্থ্য মন ভালো রাখে, মানবিক কাপাসিয়া ও সংস্কৃতিমনা কাপাসিয়া গড়ার লক্ষ্যে আমরা সবাই একযোগে কাজ করবো। আগামী 26 মার্চ কাবাডি ফাইনাল খেলাটি আরো সুন্দর প্রাণবন্ত উপহার দেবে বলে বিশ্বাস করি। করুণা মহামারীতে সকলেই ভাল থাকেন সুস্থ থাকেন সবার সুস্বাস্থ্য কামনা করেন।

কাপাসিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ আলম চাঁদ বলেন
বাংলাদেশে কাবাডি খেলার প্রচলন ঠিক কখন হয়, সে সম্পর্কে সঠিক ধারণা পাওয়া মুশকিল। তবে খেলাটি যে সাধারণ মানুষের কাছে খুবই জনপ্রিয় ছিল, তার প্রমাণ দর্শকের উপস্থিতিতে পাওয়া যায় স্বাধীনতা অর্জনের অব্যবহিত পরেই কাবাডিকে জাতীয় খেলার স্বীকৃতি দেওয়ার মধ্য দিয়ে। সরকারিভাবে খেলাটিকে পৃষ্ঠপোষকতা দেওয়ার লক্ষ্যে ১৯৭৩ সালে বাংলাদেশ অ্যামেচার কাবাডি ফেডারেশন গঠিত হয়। ফেডারেশন এ খেলার বিভিন্ন নিয়মকানুন তৈরি করে। ১৯৭৪ সালে বাংলাদেশ সফররত ভারতীয় কাবাডি দলের সঙ্গে প্রথম কাবাডি টেস্ট খেলে।
করোনা মহামারীতে সকলেই সাবধানতা অবলম্বন করবেন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মাস্ক পরিধান করবেন সরকারি আইন কানুন বিধিমালা মেনে চলবেন এই আহ্বানে বক্তব্য শেষ করেন।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন