বেনাপোলে কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২২ উদযাপিত

0
1

বেনাপোলে কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২২ উদযাপিত

মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম বিশেষ প্রতিনি

পুলিশই জনতা,জনতাই পুলিশ”, “কমিউনিটি পুলিশিংয়ের মূলমন্ত্র শান্তি-শৃঙ্খলা সর্বত্র” এমন প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে বেনাপোলে উদযাপিত হলো “কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২২। এ উপলক্ষে বেনাপোল পোর্টথানার পক্ষ থেকে দিনব্যাপি নানা অনুষ্ঠান কর্মসূচি’র আয়োজন করা হয়।

শনিবার(২৯ অক্টোবর) সকাল ১০ টায় থানার পক্ষ থেকে একটি বর্ণাঢ্য “আনন্দ র‍্যালি” বের করা হয়। র‍্যালি তে নেতৃত্ব দেন বেনাপোল পোর্টথানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ কামাল হোসেন ভূঁইয়া। র‍্যালি টি থানা প্রাঙ্গণ থেকে শুরু করে বন্দর এবং বেনাপোল বাজার প্রদক্ষিণ করে।

র‍্যালি শেষে সর্বস্তরের মানুষকে সাথে নিয়ে
থানা প্রাঙ্গণে বেলুণ উড়িয়ে এবং কেক কেটে “কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২২” এর শুভসূচনা ঘটান ওসি মোঃ কামাল হোসেন ভূঁইয়া।

এক শুভেচ্ছা বার্তায় ওসি মোঃ কামাল হোসেন ভূঁইয়া বলেন, “দেশে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রুপকল্প বাস্তবায়নে কমিউনিটি পুলিশিং ব্যবস্থাপনা অতি গুরুত্বপূর্ণ। কমিউনিটি পুলিশিংয়ের মাধ্যমে পুলিশ এবং কমিউনিটির মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে অপরাধ দমন ও উদঘাটন, জননিরাপত্তা বিধান এবং সমাজের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ রাখতে এটি সহায়ক ভূমিকা হিসেবে কাজ করবে”।

উক্ত র‍্যালি তে পুলিশ সদস্য,স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ সহ অত্র থানাধীন সকল কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি, এলাকার সর্বস্তরের মানুষ, বেনাপোল পৌরসভার কাউন্সিলরগণ, কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দ, ৩টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান(বেনাপোল ইউপি চেয়ারম্যান-বজলুর রহমান,বাহাদুরপুর ইউপি চেয়ারম্যান-মফিজুর রহমান,পুটখালী ইউপি চেয়ারম্যান-মোঃ আব্দুল গফ্ফার সরদার) ও মেম্বরগণ। এ ছাড়াও বেনাপোল পৌর আ.লীগ সভাপতি-এনামুল হক মুকুল,সাধারণ সম্পাদক-মোঃ নাসির উদ্দিন,শার্শা উপজেলা যুবলীগ সভাপতি-অহিদুজ্জামান অহিদ(শার্শা উপজেলা আ.লীগ সাধারন সম্পাদক মরহুম নুরুজ্জামানের ভাই),যশোর জেলা যুব মহিলালীগের সাধারণ সম্পাদক-শামীমা আলম সালমা,বেনাপোল পৌর যুবলীগ আহবায়ক ও পৌর কাউন্সিলর-আহাদুজ্জামান বকুল,যুগ্ম আহবায়ক-মোঃ জসিম উদ্দিন,পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি-জুলফিকার আলী মন্টু,সাধারণ সম্পাদক-মোঃ কামাল হোসেন,পৌর বাস্তহারালীগের সভাপতি-মোহাম্মাদ আলী,বেনাপোল বন্দর হ্যান্ডলিং শ্রমিক ইউনিয়ন সভাপতি-রাজু আহম্মেদ,সাধারণ সম্পাদক-আক্তারুজ্জামান,পৌর ছাত্রলীগ সাবেক সভাপতি-আব্দুল্লাহ আল মামুন,সাধারণ সম্পাদক-তৌহিদুল ইসলাম তৌহিদ সহ বেনাপোল পোর্টথানাধীন আ.লীগের সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতা-কর্মীবৃন্দ।

উল্লেখ্য, দেশের ময়মনসিংহ জেলার তৎকালীন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবং পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম‍ শহীদুল হক ১৯৯৪ ইং সনে এই কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রম চালু করেন।

সে সময় ময়মনসিংহে হঠাৎ করেই বেড়ে যায় চুরি, ছিনতাই। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে তৎকালীন পুলিশ সুপার (এসপি) আহমাদুল হক গঠন করেন টাউন ডিফেন্স পার্টি। এটি মূলত কমিউনিটি পুলিশিংয়ের একটি অংশ। ওই সময়ই প্রথম শহরবাসীদের নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য পাড়া-মহল্লায় পাহারাদার নিয়োগ করা হয়।

স্থানীয় জনসাধারণই তাদের টাকা দিতেন। তাদের হাতে দেওয়া হয় টর্চলাইট, বর্শা। ঠিক সে সময়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ কে এম শহীদুল হক কমিউনিটি পুলিশিং নিয়ে কাজ শুরু করেন।

ময়মনসিংহ থেকে প্রাপ্ত কমিউনিটি পুলিশিংয়ের ধারণা পরবর্তীতে গোটা দেশে ছড়িয়ে দেন এ কে এম শহীদুল হক।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন