বোরো ফসলের আবাদে ব্যস্ত (হবিগঞ্জ) শায়েস্তাগঞ্জের কৃষকেরা

0
9

এম হায়দার চৌধুরী, শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ) হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার সর্বত্র একযোগে শুরু হয়েছে বোরো ধানের চারা রোপন। তীব্র শীত ও কুয়াশা উপেক্ষা করে কৃষকদের কর্মব্যস্ততা বৃদ্ধি পাচ্ছে। জমি তৈরি, জমিতে হালচাষ, বীজতলা থেকে বোরো ধান চারা উঠানো শেষে জমিতে চারা রোপনের মত কাজে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন শায়েস্তাগঞ্জের কৃষকরা। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে বোরো আবাদে তেমন সমস্যা হবেনা বলে মনে করছেন স্থানীয় কৃষকরা।
সরজমিনে দেখা যায়, উপজেলার বেশিরভাগ ফসলি জমিতে কেউ ট্রাক্টর দিয়ে হাল চাষ করছেন, কেউ স্যালো মেশিন দিয়ে জমিতে পানি সেচ দিচ্ছেন, আবার কেউ কেউ ধানের চারা বীজতলা থেকে উঠাচ্ছেন। তবে বেশ কিছু জমিতে আবার অনেকে চারা রোপনও করে ফেলছেন।
এ ব্যাপারে কৃষক হান্নান মিয়া জানান, তিনি দুই একর জমিতে বোরো ধানের চারা রোপন করেছেন। তিনি প্রতি একর জমিতে চারা রোপনের জন্য ১২শ টাকা করে খরচা দিয়েছেন। আর নিজেই বীজতলা থেকে ধানের চারা উঠিয়েছেন। আরেক কৃষক আব্দুল হেলিম মিয়া এক একর জমিতে চারা রোপন করেছেন। বীজতলা থেকে চারা উঠানোসহ তিনি শ্রমিকদের দিয়েছেন ১৬শ টাকা। উপজেলার নুরপুর ইউনিয়নের কৃষক রংগু মিয়া বলেন, আমরা ৫ জন করে দলবদ্ধ হয়ে চারা রোপন করি। প্রতিদিন দুই থেকে আড়াই একর জমিতে চারা রোপন করতে পারি, এতে করে আমাদের ৫/৬শ টাকা আয় করতে পারি প্রতিদিন, আবার অনেকদিন কাজ থাকেও না। গত মৌসুমে ধানের বিক্রয় মূল্য ভাল থাকায় কৃষকরা বেশ লাভের মুখ দেখেছেন, সেজন্য এবার বোরো ধানের চাষাবাদ বেশি হবে বলে ধারনা করা যাচ্ছে।
এ ব্যাপারে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সুকান্ত ধর বলেন, এবার তুলনামূলকভাবে অধিক জমিতে বোরো ধান চাষ করা হয়েছে। এ বছর শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় বোরো আবাদ লক্ষ্যমাত্রা ১৩৫০ হেক্টর। এ পর্যন্ত ৯৫% ভাগ ধান রোপন শেষ করা হয়েছে।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন