ভালুকায় চেয়ারম্যান ও তার জি এম এর মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন

0
87

ময়মনসিংহ (ভালুকা) প্রতিনিধিঃ
৬ নং ভালুকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শিহাব আমিন খান ও তার মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান টু এস জি এম মোঃ সুরুজ কাজি সহ আরো অজ্ঞাত ২০ থেকে ২৫ জনকে রেখে মিথ্যা মামলা করেছিলেন বনবিভাগ।

সেই ঘটনার প্রতিবাদ ফলস্বরূপ আজ ২০ই মে ২০২১ বেলা ১১ টা হতে ৬ নং ইউনিয়ন পরিষদ ও বিভিন্ন ইউনিয়নের আপামর জনগণ যারা শিহাব আমিন খান কে অন্তরের অন্তস্থল থেকে ভালোবাসে সকল ভালোবাসার মানুষরা ভালুকা উপজেলা চত্বরে অবস্থান করেন।
সকাল ১১ টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত তারা প্রখর রৌদ্রে শিহাব আমিন খানের এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে মানববন্ধন করেন।

উক্ত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ভালুকার জনসাধারণ সহ বিভিন্ন পর্যায়ের উচ্চপদস্থ নেতৃবৃন্দ তারা সকলেই এই বন বিভাগের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানায় ও তীব্র নিন্দা প্রকাশ করে এবং

এক নেতা এমন কথা বলেন আমরা আমাদের টাকা দিয়ে বাড়ি ঘর করি যদি খরচ লাগে দুই লাখ টাকা তাহলে তাদেরকেও দিতে হয় ১ লাখ টাকা লোকজন গরিব তবু যেভাবেই হোক তাদের টাকা দিতেই হবে ।
অন্যথায় তারা বাড়িতে হানা দিয়ে মিস্ত্রিদের যন্ত্রপাতি নিয়ে যায় এই সময় অনেকে আওয়াজ তোলেন এই ঘটনার সত্যতা সেখানেই প্রকাশ হয়ে যায়।

ভালুকা ইউনিয়ন পরিষদ ১ নং ওয়ার্ডের মেম্বার বুলবুল খান বলেন
আমার চেয়ারম্যান প্রায় ৫ বছর যাবত তার দায়িত্ব পালন করে আসছেন, যার ভিতরে কোনো দূর্নীতি আমরা দেখি নাই পাই নাই দূর্নীতি করে নাই। নিজের জীবন উৎসর্গ করে আসছেন, এমন কিছু তুমরা করোনা আমার বদনাম কামাই করো না, গরিবের হক কে তুমঅরা নষ্ট করো না। গরিবের হক গরিবের মধ্য বিলিয়ে দেয়ার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা উনি করেছেন আর সে চেয়ারম্যান এর উপর আজ মিথ্যা মামলা যে ভদ্র লোক গরিবের মধ্য তার পকেটের টাকা বিলিয়ে দিয়েছেন,এই মামলার জন্য আমরা তীব্র নিন্দা জানাই এই মামলা যেনো অতি শিগ্রয় প্রত্যাহার করা হয়।

আরেক ম্যাম্বার বলেন “আমি ২০ বছর ধরে মেম্বারী করছি আমার অনেক চেয়ারম্যান ছিল উনার মত সৎ যোগ্য নিশ্বার্থ জন প্রেমী একজন ২০ বছরের মাঝে পায় নাই।

এছাড়া আওয়ামীগ এর বিভিন্ন নেতাকর্মী ভিবিন্ন ধরনের ক্ষোভ প্রকাশ করেন, নেতা কর্মীরা বলেন উনি ১ কেজি চাল আসলে আরও দুই কেজি চাল কিনে জনগনের মধ্য বিলিয়ে দিতেন।
আর উনার মতন ব্যাক্তি গাছ চুরি করতে হবে এটার সত্যতা জনগনের বিভেক এর উপর ছেড়ে দিয়েছেন।

এক নেতৃ ২৪ ঘন্টার ভিতর মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছেন।

সাধারন গ্রামের অশিক্ষিত জনগন সংবাদ প্রতিনিধি কে বলেন ” দুঃক্ষিত মনে বলেন ভাই চেয়ারম্যান কী গরিব মানুষ না টেহার অভাব যে গাছ চুরি করুন লাঘবো এইতা মামলা অইসে ভাই আলাপ এইতা বলে আল্লাহ বিচার করবো ভাই”

উপস্থিত সকল নেতা কর্মী ও উপস্থিত দেড় হাজার আপামর জনগন এই মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছেন।
এবং সংবাদ কর্মীদের সঠিক সংবাদ তুলে ধরার আহবান জানিয়েছেন।

বক্তাদের দাবী হাজির বাজার ক্যাম্প ইনচার্জ এ,কে,এম সাফেরুজ্জামান ভালুকা রেঞ্জ কর্মকর্তা ও হবিরবাড়ী বিট কর্মকর্তার নাম ভাঙ্গিয়ে চেয়াম্যানের কাছে পাঁচ লক্ষ টাকা ঘুষ দাবী করেন। দাবীকৃত ঘুষের টাকা না দেয়ায় এ হয়রানী মূলক মামলা সৃজন হয়েছে।তাছাড়া যে জায়গা থেকে গাছ কাটার দাবী করা হয়েছে ওই জমিটি দুই যুগ ধরে মান্না কোম্পানীর দখলে রয়েছে। এলাকাবাসী অভিযোগ করেন যদি কেউ নিজেদের জমিতে ঘরবাড়ি উঠাতে যায় বন বিভাগ অহেতুক মিথ্যা মামলার ভয় দেখিয়ে লোকজনের কাছ থেকে টাকা পয়সা হাতিয়ে নেয়। চাহিদামত টাকা না দিলে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়।এসময় উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য বুলবুল হোসেন খান, রফিকুল ইসলাম, ফারুখ হোসেন, হাফিজুল ইসলাম, সোহেল রানা, আবুল হোসেন খান, আঃ ওয়াহাব, মহিলা মেম্বার রহমত আরা খানম, ইউনিয়ন যুবলীগের যগ্ন আহবায়ক কামরুল ইসলাম, ভালুকা আঞ্চলিক শ্রমিকলীগের যুগ্ন সম্পাদক আসাদুজ্জামান, এলাকাবাসী খোকন হোসেন, আব্দুর রশীদ, মোঃ রিপন মিয়া প্রমুখ।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন