ভালুকায় পোশাককর্মীর শ্লীলতাহানী,আটক-১

0
9

সাকিব হাসান প্রিয়াস,ভালুকা (ময়মনসিংহ) থেকেঃ
ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় এক পোশাক শ্রমিকের শ্লীলতাহানীর অভিযাগে ১ লেগুনা চালক আটক।
ঘটনাটি সামবার (১২ জুলাই) রাত আনুমানিক ৯ ঘটিকর সময় ভালুকা উপজলার ভালুকা ইউনিয়নের মেহরাবাড়ি নামক এলাকায় ঘটে।

উক্ত ঘটনায় ভালুকা উপজলার ঝালপাজা গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে জাহিদ হাসান(১৯),নুন্দীবাড়ির আল-আমীন(২৫),ত্রিশাল রাঘামারার জিয়ারুল ইসলাম(১৯), একই গ্রামর সাগর(২০)সহ অজ্ঞাতনামা আরও একজনকে আসামি কর ভিকটিম বাদী হয়ে ভালুকা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করছন।

পুলিশ এ ঘটনায় জাহিদ নামের ১ লেগুনা চালককে গ্রফতার করেছে।

থানা ও মামলা সূত্র জানা যায়-
পোষাকর্মী ভালুকা থানাধীন স্কয়ার মাষ্টারবাড়ী পিএনিট কম্পোজিট ফ্যাক্টরিতে অপারেটর পদে চাকরি করে।

১২/৭/২০২১ তারিখে রাত অনুমান ০৭.৩০ ঘটিকার সময় ভিকটিম তাঁর নিজ বাড়ী হইতে ভালুকা থেকে স্কয়ার মাষ্টারবাড়ী যাবার উদ্দ্যেশে পাবলিক মিনিবাস যোগে রওয়ানা হয় আনুমানিক ০৮:৩৫ ঘটিকার সময় ভালুকা বাসস্ট্যান্ড এসে পৌছালে বাস আর যাবে না বলে জানায় এবং বাস থেকে নামিয়ে দেয় অতঃপর স্কয়ার মাষ্টারবাড়ী যাবার জন্য রাত অনুমান ০৮.৪০ এর দিকে ভালুকা বাসস্ট্যান্ড হইতে লেগুনা গাড়ী, যার রেজিঃ কুমিল্লা-ছ-১১-০২৮১ গাড়ীতে উঠি,

বিবাদী মোঃ জাহিদ হাসান (চালিত), পাশের সিটে বসা বিবাদী আল-আমিন এবং পিছনের সিটে পোষাক কর্মীর সাথে বিবাদী জিয়ারুল ইসলাম ও বিবাদী সাগর বসা ছিল। লেগুনা গাড়ী ভালুকা বাসস্ট্যান্ড হইতে মাষ্টারবাড়ীর উদ্দ্যেশে ছেড়ে কিছুদুর অর্থাৎ ৬নং ভালুকা ইউনিয়নের মেহেরাবাড়ীর আসার পর লেগুনার ড্রাইভার বিবাদী মোঃ জাহিদ হাসান লেগুনা গাড়ী লাভেলো ফ্যাক্টরির রাস্তায় প্রবেশ করায় পোষাক কর্মী চিৎকার দিয়ে বলে যে, কোথায় নিয়ে যাচ্ছেন ।

তখন সময় রাত আনুমানিক ০৯.০০ ঘটিকার লেগুনার ড্রাইভার বিবাদী মোঃ জাহিদ হাসান লেগুনা গাড়ী ভালুকা ইউনিয়নের মেহেরাবাড়ী বায়তুন নূর জামে মসজিদ এর উত্তর পাশে পাকা রাস্তার উপর থামায়। এবং গাড়ী হতে পোষাক কর্মী নেমে পড়ে।

তখন ড্রাইভার বিবাদী মোঃ জাহিদ হাসান, আল-আমিন, জিয়ারুল সাগর ও অজ্ঞাতনামা ১জন বিভিন্ন ধরনের অশীল ইঙ্গিতপূর্ণ কথা-বার্তা বলে। পোশাক কর্মীর ওড়না ধরে টান দেয় এবং শরীরের বিভিন্ন স্পর্শ কাতর স্থানে হাত দিয়া শ্রীলতাহানী করে।

তখন পোশাক কর্মীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে বিবাদীদের হাত থেকে উদ্ধার করে। অতঃপর লোকজন ঘটনাস্থল হইতে বিবাদী মোঃ জাহিদ হাসানকে আটক করে। অন্যান্য বিবাদীরা দৌড়াইয়া পালিয়ে যায়।

অতঃপর বিবাদী জাহিদকে জিজ্ঞাসাবাদে উপরোক্ত আসামীদের নাম-ঠিকানা প্রকাশ করে এবং অজ্ঞাতনামা ০১জন আসামীর নাম জানে না বলে জানায়। অতঃপর সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে এবং পোশাক কর্মী ও বিবাদীকে আসামী করে থানায় নিয়ে আসে। অত:পর পোষাক কর্মীর পরিবারকে অবগত করেন।

লেগুনাচালক জাহিদ হাসান (১৯)কে আটক করে ভালুকা মডেল থানা পুলিশ।
ভালুকা মডেল থানার তদন্তকারী
অফিসার এস,আই কাজল হাসান জানান, ওই ঘটনায় মামলা হয়েছে এবং একজনকে গ্রেফতার করে আদালত পাঠানা হয়েছে।

তথ্য সূত্রে জানা যায় লেগুনার মালিক ভালুকার বটতলা নামক স্থানের সোহেল মিস্ত্রি।

ঘটনাস্থলে সাধারণ মানুষ উক্ত ঘটনার উপযোক্ত বিচারের দাবী জানায়।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন