শ্রীপুরে বন বিভাগের উচ্ছেদ অভিযানে গ্রাম বাসীর হামলা, বিট কর্মকর্তা আহত

0
304

শ্রীপুর(গাজীপুর)প্রতিনিধিঃ
গাজীপুরের শ্রীপুর রেঞ্জের গোসিংঙ্গা বিট এরিয়ার পেলাইদ মৌজায় বনের জমিতে উচ্ছেদ অভিযানের সময় গ্রামবাসীরা সহকারী বন
সংরক্ষক সহ ১৫ বনকর্মীর উপর হামলা করে অবরুদ্ধ করে রাখে। খবর পেয়ে পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে বনবিভাগের অবরুদ্ধ কর্মীদের উদ্ধার করে। বৃহসপতিবার বেলা পৌনে একটার দিকে গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার গোসিংগা ইউনিয়নের পেলাইদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এসময় গোসিংগা ফরেষ্ট অফিসের বিট কর্মকর্তা মনিরুল করিম আহতহন। বিট কর্মকর্তা মনিরুল করিম বলেন, পেলাইদ গ্রামে বনভূমিতে বসত ঘড় নির্মান করছে স্থানীয় লোক জন। জরদখল হওয়া
বনভূমি উদ্ধার করতে বৃহসপতিবার বেলা পৌনে একটার দিকে শ্রীপুর রেঞ্জের দায়ীত্ব প্রাপ্ত সহকারী বন সংরক্ষক রানা দেব এর নেতৃত্বে সদর বিট কর্মকর্তা মো. বজলুর রহমান, গোসিংগার বিট কর্মকর্তা মনিরুল করিম সহ বনকমীরা পেলাইদ গ্রামে উচ্ছেদ অভিযান চালায়। অভিযানের শুরুতেই স্থানীয়রা বাধা প্রদান করে। তিনিটি বাড়ি উচ্ছেদের পর গ্রারে লোকজন মারমুখী হয়ে উঠে।

উত্তেজিত লোকজন বনবিভাগের গাড়ির সামনে এসে বাঁধা দেয়। গাড়িতে অগ্নি সংযোগের চেষ্টা করে। রাস্তা অবরোধ করে সহকারী বন সংরক্ষক সহ ১৫জন বনকর্মীকে অবরোদ্ধ করে রাখে। খবর পেয়ে শ্রীপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এস তাদেরকে উদ্ধার করে। এসময় স্থানীয়দের ইট পাটকেলের আঘাতে বিটকর্মকর্তা মনিরুল হক সহ কয়েকজন বন কর্মী আহত হন।
আহত বিট কর্মকর্তা সহ বাকিদের উদ্ধার করে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

ভূক্ত ভোগী সমলা,সিরাজ উদ্দিন, জিতুন লাল বলেন, আমরা এ জায়গায় ৫০/৬০ বছর ধরে বসবাস করেআসছি। পুরাতন ঘর ভেঙ্গে নতুন করে তৈরী করেছি। বনবিভাগের লোকজন আমাদের কোনকিছু না জানিয়ে এসে বাড়িঘর ভেঙে দিয়েছে। জিতেন লাল বলেন, উচ্ছেদে বাধা দেয়ায় তার স্ত্রী সুমিত রানীকে বন কর্মীরা
লাথি মেরে আহত করে। গোসিঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মো. কবির হোসেন বলেন, এরা দীর্ঘ ৫০/৬০ বছর যাবৎ এই জমিতে বাড়িঘর নির্মাণ করে বসাবাস করে আসছে। হঠাৎ করে তাদের বাড়িঘর ভেঙে দেয়ায় তারা উত্তেজিত হয়ে বনবিভাগের কর্মীদের বাঁধা দিয়েছে।

শ্রীপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই ) মো. মাজাহারুল ইসলাম বলেন, বনবিভাগের লোকজন উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করতে গিয়ে অবরুদ্ধ হয়। এমন খবরের ভিত্তিতে ঘটনাস্থলে গিয়ে বনবিভাগের কর্মীদের উদ্ধার করা হয়েছে।

শ্রীপুর রেঞ্জের দায়িত্বে থাকা সহকারী বন সংরক্ষক রানা দেব জানান, আমরা বনের জমি দখল করে নির্মাণ করা ঘর বাড়িতে উচ্ছেদ অভিযান শুরু করি। অভিযান শেষ হওয়ার পূর্বেই গ্রামবাসী উচ্ছেদ অভিযানে বাধা দেয়। স্থানীয় দের বাধার কারণে অভিযান সমাপ্ত করতে
পারিনি।

উত্তেজিত হয়ে স্থানীয়রা আমিসহ বনভিবাগের ১৫ কর্মীকে প্রায় এক ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখে। পরবর্তীতে পুলিশ এসে আমাদেরকে
উদ্ধার করে। সহকারী বন সংরক্ষক রানা দেব আরও জানান, সরকারী কাজে বাধা দেয়া এবং বন ভূমি জবর দখল করার অপরাধে জবরদখল কারীদের বিরুদ্ধে আইন গত ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন