হবিগঞ্জের সাতছড়ি অরণ্য যেন অস্ত্রের খনি !

0
5

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি :: হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলার অন্তর্গত সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানের গভীর অরণ্য থেকে বিপুল পরিমাণ গ্রেনেড ও গুলি উদ্ধার করেছে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম।

জানা যায়, সোমবার ভোররাত থেকে পরদিন দুপুর ১টা পর্যন্ত উদ্যানের ভেতর অভিযান চলে । অভিযান শেষে চুনারুঘাট থানায় সংবাদ সম্মেলন করেন কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের ডিআইজি মো. আসাদুজ্জামান।

তিনি জানান, রোববার রাত ৮টার দিকে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, চার রাউন্ড গুলি, একটি ম্যাগাজিনসহ এক যুবককে আটক করে পুলিশ।


পার্বত্য চট্টগ্রামের খাগড়াছড়ির পানছড়ি বাসিন্দা আবিল ত্রিপুরা নামের ওই যুবক জানান, সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানের ভেতর বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ মজুত রয়েছে তার দেয়া তথ্যমতে, রাত ৩টার দিকে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানের ভেতর অভিযান চালায় কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। বনের দক্ষিণ দিকে ১ ঘণ্টা হাঁটার পর তিনটি টিলার ওপর থেকে মাটির নিচে পুঁতে রাখা অবস্থায় বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদের সন্ধান পাওয়া যায়। এসবের মধ্যে আছে ১৫টি রকেট প্রফেল গ্রেনেড, ২৫টি গ্রেনেড বুস্টার ও ৬টি টিনের বক্সে রাখা ৫১০ রাউন্ড লংরেঞ্জ অটোমেটিক মেশিনগানের বুলেট।

আসাদুজ্জামান বলেন, ‘আবিল ত্রিপুরাকে আটকের পর পরই আমরা সাতছড়ি অভিযানে নেমে পড়ি। এ কারণে তার কাছ থেকে বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। তিনি আরও বলেন, আমরা আবিলকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করব। প্রয়োজনে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। অস্ত্রগুলো কোথা থেকে এলো, সে কোনো জঙ্গিগোষ্ঠীর সঙ্গে জড়িত কি না, সে বিষয়ে জানা যাবে। এ ছাড়া যেহেতু বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে, তাই এগুলো চালানোর মেশিনও আছে কি না তারও খোঁজ চালানো হবে বলে জানান তিনি।

প্রেস ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন, কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের জয়েন্ট কমিশনার ইলিয়াস শরীফ, স্পেশাল অ্যাকশন গ্রæপের ডিসি আবদুল মান্নান, হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলি ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রবিউল ইসলাম প্রমুখ।

এ নিয়ে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে অষ্টমবারের মতো অস্ত্র উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করা হলো।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন