হবিগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসে দুদকের আকষ্মিক অভিযান- দালাল ছাড়া আবেদন বাতিল!

0
3

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি:: হবিগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে সীমাহীন অনিয়ম-দুর্নীতি আর দালালচক্রে অশুভ আধিপত্য। হয়রানি-ভোগান্তি আর অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অজস্র অভিযোগ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে। দালাল ছাড়া আবেদন করলে অজানা অজুহাতে ফিরিয়ে দেয়া। এসব অযাচিত অভিযোগ ও অনিয়মের প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) অভিযানিক দল।

মঙ্গলবার (১১ই জানুয়ারি) হবিগঞ্জ সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোঃ এরশাদ মিয়ার নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করে দুদকের একটি এনফোর্সমেন্ট টিম। এ সময় বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ যাচাই ও পাসপোর্ট অফিসে আসা সেবাপ্রার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন দুদক কর্মকর্তারা।

জানা যায়, দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম পাসপোর্ট অফিসে কর্মরত কর্মচারী ও আনসার সদস্যদের মোবাইল ফোনের কললিস্ট যাচাই করে অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছেন। পরবর্তীতে এ সংক্রান্ত নথিপত্র ও তথ্য-প্রমাণ এবং মোবাইলের কললিস্ট বিশ্লেষণ করে সুনির্দিষ্ট সুপারিশসহ কমিশন বরাবর প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে। এছাড়াও অসাধু কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ঘুষ নেয়ার অভিযোগেরও সত্যতা পেয়েছে দুদক। তবে অভিযানের সময় হবিগঞ্জ পাসপোর্ট কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আইরিন পারভীন ডালিয়াকে কর্মস্থলে পাওয়া যায়নি। তিনি দাপ্তরিক কাজে সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ে রয়েছেন বলে জানা গেছে।

সেবাপ্রত্যাশীরা দুদক টিমকে অভিযোগ করে জানান, ত্রæটির অজুহাত দেখিয়ে পাসপোর্টের আবেদন নিতে দেরি করেন কর্মকর্তারা। তবে কোনো দালাল বা ট্রাভেল এজেন্সির মাধ্যমে অতিরিক্ত টাকা দিয়ে আবেদন করলে তখন ত্রæটিপূর্ণ আবেদনও গ্রহণ করা হয়। তারা আরও জানান, এজেন্সিগুলোর সঙ্গে পাসপোর্ট অফিসের কর্মচারীদের সরাসরি যোগাযোগ রয়েছে। দুদক কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোঃ কামরুজ্জামান বলেন, ‘দালালের উপদ্রব বৃদ্ধিসহ ভুক্তভোগীদের লিখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে এ অভিযান পরিচালিত হয়েছে।

আপনার মতামত প্রকাশ করেন

আপনার মন্তব্য দিন
আপনার নাম এন্ট্রি করুন